গুইমারায় খোলা বাজারে নিম্ম মানের বীজ বিক্রি, প্রতারনার ফাদেঁ অসহায় কৃষক ।

 প্রকাশ: ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৭:০৪ অপরাহ্ন   |   জেলার খবর


গুইমারা(খাগড়াছড়ি)প্রতিনিধিঃ

খাগড়াছড়ির গুইমারা খোলা বাজারে প্রতিনিয়ত নিম্ম মানের কৃষি বীজ বিক্রি করছে প্রতারক কিছু ব্যবসায়ী।এসব বীজ কিনে প্রতারিত হয়েছেন স্থানীয় অনেক কৃষক।ধান থেকে শুরু করে নিম্ম মানের বিভিন্ন ফসলি বীজ কিনে হতাশায় পড়েন এসব কৃষকরা।

সরকারী নিয়ম অনুযায়ী সার বা বীজ বিক্রি করতে হলে কৃষি বিভাগের নিবন্ধনের প্রত্যায়ন বা বীজ পরিবেশক থাকার  কতা থাকলেও এসবের প্রয়োজন পড়ছেনা গুইমারা বাজারের খোলা এসব বীজ ব্যবসায়ীদের। 

এসব দেখার জন্য সরকার  উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সহ উপজেলার প্রতিটি ব্লকে একজন করে  রেখেছেন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা।কৃষকদের এসকল হয়রানীর বিষয় সুদৃষ্টি দিয়ে  দেখার কতা তাদের। কিন্তু  বিশেষ কোন কারনে তারা দেখতে সময় পাননা বলেই হয়রানী হচ্ছেন সাধারন কৃষকরা।


সম্প্রতি গুইমারা বাজার ঘুরে দেখা যায়, আসন্ন বোরো মৌসুমের ধান বীজ সংগ্রহ করার জন্য কৃষকরা যখন মরিয়া ঠিক তখন বাজারের পাঁচ থেকে ছয় স্থানে বসে  একটি চক্র এসব নিম্ম মানের বীজ বিক্রি করছে। তাদের কাছে কোনো প্রকার লাইসেন্স নাই।তবে  নিম্ম মানের হওয়ায় 

তারা  কম দামে বিক্রি করতে পারে এসব বীজ।


স্থানীয় ভুক্তভোগী কৃষক সাজুদ্দিন মিয়া জানান,এসব বীজ কিনে কৃষকরা প্রতারিত হচ্ছেন।  অনেক সময় অংকুরোধগম

হয় না এসব বীজ।


বাজারের নিবন্ধনকৃত ব্যবসায়ী জান্নাত ট্রেডাসের মালিক  আঃ লতিফ জানান,খোলা বাজারে আজে বাজে নামে বেনামে, মেয়াদ হীন এসব বীজ বিক্রির কারনে সাধারন কৃষকরা যেমন ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছেন তেমন নিবন্ধনকৃত ব্যবসায়ী বা বীজ ডিলারগন ও ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে।এছাড়াও  ব্যাবসায়ীক ক্ষতি হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন লাইসেন্স করা স্থানীয় সার, কীটনাশক ও বীজ ব্যবসায়ীরা।

 

গুইমারার দায়িত্বরত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা সুমন কর জানান,এসব বীজ ব্যবসায়ীদের বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নির্দেশনা দিবেন।তবে সরকারী কোন নির্দেশনা নেই তার জানামতে।

অপরদিকে উপজেলা কৃষি (অতিঃ দাঃ)কর্মকর্তা ওঙ্কার বিশ্বাস জানান, নিবন্ধন ছাড়া বা বীজ ডিলার ছাড়া খোলা  বাজারে কোন ক্রমেই বীজ বিক্রি করার নিয়ম নেই।এবিষয়ে তিনি অবগত ছিলেন না। বিষয়টি জেনেছেন, খোজঁ ও  প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়ে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নিবেন।

জেলার খবর এর আরও খবর: