কালকিনিতে সতন্ত্র প্রার্থীর নিঁখোজের প্রতিবাদে থানা ঘেরাও, সংঘর্ষ, আহত ৫০

 প্রকাশ: ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০১:২৯ পূর্বাহ্ন   |   অর্থ ও বাণিজ্য


স্টাফ রিপোর্টারঃ শেখ লিয়াকত আহম্মেদ


মাদারীপুররে কালকিনি পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে সতন্ত্র প্রার্থী সাবেক ছাত্রলীগের নেতা মশিউর রহমান সবুজের নিখোঁজের প্রতিবাদে সহস্রাধিক নারী-পুরুষ কালকিনি থানা ঘেরাও করে। এসময় কালকিনি-ভূরঘাটা আঞ্চলিক সড়কে গাছের গুঁড়ি ও টায়ার জালিয়ে সড়ক অবরোধ করে সবুজের মুক্তির দাবি করে বিক্ষোভকারীরা। 


সবুজের সমর্থকদের অবোরোধ চলাকালিন সময় আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী এস এম হানিফের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এতে দেশিয় অশ্র সস্র নিয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। তিন ঘণ্টাব্যাপী এই সংঘর্ষে কমপক্ষে ৫০জন আহত হয়েছে।

আহতদের কালকিনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও অন্যান্য ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। একজনের অবস্থা আশংকাজনক। 


খোঁজ নিয়ে যানা যায় আজ দুপুরে দিকে সতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মশিউর রহমান সবুজ হাওলাদারকে কালকিনি আবুল হোসেন কলেজের সামনে থেকে মাদারীপুরের পুলিশ সুপার দেখা করতে বলেছেন বলে তুলে নিয়ে যায় জেলার ডিবি পুলিশ। এরপর তাকে প্রথমে মাদারীপুর এর পর ঢাকার উদ্যেশে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে সবুজের সমর্থকরা তার মুক্তির দাবিতে থানা ঘেরাও করে। 


এ বিষয়ে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল হান্নান জানান, সতন্ত্র প্রার্থী মশিউর রহমান সবুজের সমর্থক ও নৌকার সমর্থকদের মধ্যে একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। কালকিনি থানা ও জেলা পুলিশ, ডিবি এবং র‍্যাবের যৌথ অভিযানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। জনগণের যানমালের নিরাপত্তা দিতে এই সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে বেশ কিছু রাবার বুলেট ছোড়া হয় বলে জানান তিনি। 


শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা যায় যে, মশিউর রহমান সবুজকে ঢাকার বিভিন্ন গোয়েন্দা অফিসে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত ৯টার দিকে ছেড়ে দেয়া হয়। মুক্তি পেয়ে তিনি বলেন, আমার জনগণ যদি চায় তাহলে আমি নির্বাচন চালিয়ে যাব, আর যদি তারা না চায় তাহলে আমি সরে যাব কিন্তু অন্যায়ের কাছে মাথা নত করবো না।

অর্থ ও বাণিজ্য এর আরও খবর: